Requirements for the Ada Lovelace National Girls' Programming Contest 2021 Main Round

আমি এখানে গুরুত্বপুর্ণ ধাপগুলো লিখে দিাচ্ছি। প্রতিযোগিতার প্রস্তুতি ও আয়োজনের সময়ে নিম্নলিখিত পরার্শগুলোকে গুরুত্বসহকারে বিবেচনা করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানাচ্ছি:

প্রোগ্রামিং ল্যাবরেটরির জন্য চাহিদা:

১. সবগুলো দলের সবগুলো পিসিতে উল্লেখিত সকল সফটওয়্যার দিতে হবে এবং টেস্ট করে দেখতে হবে যে সেগুলো ঠিকমতো চলছে কি না। টাফের সাইটে ঠিকমতো ঢোকা যাচ্ছে কি না এটার একটি টেস্ট আছে। তালিকা করে সবগুলো পিসির জন্য সেই টেস্টটা করতে হবে। টেস্টের লিংক এখানে দিয়ে দিচ্ছি: https://toph.co/compatibility প্রতিটা পিসিতে গুগল ক্রোম এবং মজিলা ফায়ারফক্সের সর্বশেষ ভার্সনটি ইন্সটল করে রাখতে হবে। ল্যাবরেটরি প্রস্তুত করার জন্য বিস্তারিত দিকনির্দেশনা পাওয়া যাবে এখানে: https://help.toph.co/toph/on-site-contest-environment/

২. সকল প্রতিযোগী দলের কম্পিউটার বরাদ্দ করার সময় হার্ডওয়্যারের সাম্যতা নিশ্চিত করতে হবে। অত্যাধুনিক সরঞ্জামাদি সমৃদ্ধ কম্পিউটার প্রদান করা আবশ্যক না হলেও প্রদত্ত সফটওয়্যারগুলো কম্পিউটারে মসৃণভাবে চলে কি না তা যাচাই করে নিশ্চিত করতে হবে। যেকোনো অনাকাঙ্খিত যান্ত্রিক গোলযোগে কোনো পিসি নষ্ট হয়ে গেলে প্রতিযোগীদের জন্য প্রতি ল্যাবে অতিরিক্ত পিসি বরাদ্দ রাখা যেতে পারে।

৩. কম্পিউটারের হার্ডওয়্যার যেমন: কি-বোর্ড, মাউস, মনিটর ঠিক আছে কি না সেটা ভালো করে দেখতে হবে। কি-বোর্ড ভালো থাকা অত্যন্ত জরুরী এবং সবগুলো কি-বোর্ডেই টাইপ করা সহজ কিনা সেটা চেক করে দেখতে হবে। কোন প্রতিযোগী নিজের কি-বোর্ড ব্যবহার করতে চাইলে তাকে সেটি ব্যবহার করতে দেওয়া যাবে। মাউসের দুইটি বাটন ও স্ক্রল হুইল (যদি থাকে) ঠিকমতো কাজ করে কিনা সেটা চেক করে দেখতে হবে। প্রয়োজনে পরিবর্তন করে দেয়া সম্ভব এরকম অতিরিক্ত কম্পিউটার যন্ত্রাংশ (মাউস, কীবোর্ড) ল্যাবে বরাদ্দ রাখা যেতে পারে।

৪. প্রতিযোগীরা যেন তাদের লেখা কোড প্রিন্ট নিতে পারে, সেই ব্যবস্থা থাকতে হবে। কোন টিম প্রিন্ট নিলে যেন সেই টিমের প্রিন্ট আউট বাকিদের কাছে চলে না যায় তা নিশ্চিত করতে হবে। প্রিন্ট নেওয়ার জন্য এই কাজে অবশ্যই আলাদাভাবে প্রয়োজনীয় ভলান্টিয়ার নিযুক্ত থাকতে হবে।

৫. প্রতিটা দলের জন্য আলাদা অ্যাকাউন্ট থাকবে অপারেটিং সিস্টেমে। সেই অ্যাকাউন্টে কনটেস্ট শুরুর আগে থেকে কোন কোড লিখে রাখা যাবে না। প্রতিযোগীদের পিসিতে পূর্বের কোনো ল্যাব টাস্ক, সফটওয়্যার টেস্ট করার কোড বা কন্টেস্টের কোড থাকা যাবে না।

৬. প্রতিযোগীদের ইউজারনেম ও পাসওয়ার্ড প্রতিটি দলের জন্য আলাদা কাগজে কনটেস্টের আগে প্রদান করতে হবে। এক প্রতিয়োগী দলের ইউজারনেম ও পাসওয়ার্ড যেন অন্য প্রতিযোগী পেয়ে না যায় সে ব্যাপারে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। ইউজারনেম ও পাসওয়ার্ড সরবরাহ করার পর প্রতিযোগীদের টাফে লগইন করে যাচাই করার জন্য অনুরোধ করতে হবে। কোনো প্রতিযোগী যদি লগইন করতে না পারে, তা হলে প্রতিযোগীরা ভলান্টিয়ারকে এই পরিস্থিতি সম্পর্কে জানাবে এবং বিচারকের উপস্থিতিতে এই পরিস্থিতির সমাধান করা হবে।

৭. কেবলমাত্র টাফে লগইন করা ছাড়া অন্য কোন কাজের জন্য কোন প্রতিযোগী প্রতিযোগিতা শুরুর পূর্বে কি-বোর্ড স্পর্শ করতে পারবে না। প্রতিযোগিতা শুরুর আগে প্রিন্ট করা কোন ডকুমেন্ট দেখে কম্পিউটারে কোড লেখা যাবে না। তবে টাফ ব্যতীত অন্য কোন সাইটে প্রবেশ করা যাচ্ছে কি না সেটা প্রতিযোগীরা যাচাই করে নিশ্চিত হতে পারবে।

৮. প্রতিযোগিতা চলাকালে দলের জন্য প্রদত্ত অ্যাকাউন্ট ব্যতীত অন্য কোন অ্যাকাউন্ট থেকে টাফে প্রবেশ করা যাবে না। যদি কোন প্রতিযোগী তার দলের জন্য নির্ধারিত অ্যাকাউন্টের বাইরে অন্য অ্যকাউন্ট দিয়ে লগইন করে, তবে ভলান্টিয়াররা অনতিবিলম্বে তা বিচারকদেরকে জানাবে এবং বিচারকরা সেই প্রতিযোগী দলকে বহিষ্কার করার এখতিয়ার রাখবে।

৯. প্রবলেমসেটের হার্ড কপি, ইউজারনেম এবং পাসওয়ার্ড সব প্রতিযোগীকে প্রদান করার পরেই কেবল কনটেস্ট শুরু করা যাবে। যদি একজন প্রতিযোগীও এগুলো না পায়, তা হলে অবশ্যই বিচারকদের তা জানাতে হবে এবং কনটেস্টের শুরুর সময় পিছাতে হবে। সব প্রতিযোগী লগইন করতে পেরেছে এবং প্রবলেমেসেটের খাম পেয়েছে এই তথ্য সব ল্যাবরুম থেকে বিচারকদের রুমে জানানোর পরেই কনটেস্ট শুরু হবে।

১০. প্রয়োজন ব্যতীত কনটেস্ট চলাকালে প্রতিযোগীদের সাথে কথা বলা যাবে না। ভলান্টিয়াররা যেন প্রতিযোগীদের সাথে অশোভন আচরণ না করে সেদিকে বিশেষ নজর রাখতে হবে।

১১. কোন প্রতিযোগী নিজের দল ব্যতীত অন্য কোন দলের কোন সদস্যের সাথে প্রতিযোগীতা চলার সময়ে কোন ধরণের যোগাযোগ করতে পারবে না। প্রতিযোগীদের কোন প্রয়োজন থাকলে তারা টাফের ক্লারিফিকেশন সিস্টেমের মাধ্যমে বিচারকদের জানাতে পারে অথবা প্রতিযোগীদের কনটেস্টের ল্যাবরেটরির ভলান্টিয়ারদের জানাতে পারে।

১২. যদি কোন প্রতিযোগী ইচ্ছাকৃতভাবে উচ্চস্বরে কথা বলে যা অন্য দলগুলোকে প্রভাবিত করতে পারে, তা হলে ভলান্টিয়ারদের অবশ্যই প্রতিযোগীকে সতর্ক করতে হবে এবং বিচারকদের জানাতে হবে।

১৩. সব প্রতিযোগী দলের জন্য ইউপিএসের ব্যবস্থা রাখতে হবে যেন দুর্ঘটনাক্রমে বিদ্যুৎ চলে গেলে তাদের কোড পুরোপুরি মুছে না যায়। তবে প্রতিযোগীরা যাতে নিয়মিত বিরতিতে কোড সেভ করে, সেই ব্যাপারে তাদের পরামর্শ দিতে হবে। ইউপিএস যথেষ্ট সময় ব্যাকআপ দিতে পারে কি না, সেটি আগে থেকে নিরীক্ষণ করে দেখতে হবে।

১৪. মক কনটেস্টের দিন আসল দিনের মতো করেই কনটেস্টের আয়োজন করতে হবে। এবং মকের দিনে কোন সমস্যা হলে তা মকের রাতের মধ্যেই সমাধানের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে।

১৫. যে সকল ভলান্টিয়ার বা কর্মী ল্যাবের পিসিগুলো চেক করবেন, তাদের সেই কাজগুলো করার আগে বিচারকদের কাছে প্রয়োজনীয় পরামর্শ গ্রহণ করতে হবে। এ ব্যাপারে একটা অনলাইন মিটিংয়ের আয়োজন করা যেতে পারে মকের আগেই।

১৬. মূল কনটেস্টের ব্যাপারে প্রতিযোগীদের বিচারকদের কাছে কোন প্রশ্ন থাকলে তা সরাসরি মকের সময়ে টাফের ক্লারিফিকেশন সিস্টেমের মাধ্যমে বা মকের পর বিচারকদের সশরীরে জানাতে হবে।

১৭. প্রতিটি ল্যাবে অন্তত একজন করে ভলান্টিয়ার রাখতে হবে যিনি দ্রুত অনাকাঙ্খিত কারিগরী সমস্যা সমাধানে পারদর্শী হবেন।

নেটওয়ার্ক সিস্টেমের জন্য চাহিদা:

১. toph.co ছাড়া অন্য সব সাইটে যেন ঢোকা না যায় সেই ব্যাপারে নেটওয়ার্ক অ্যাডমিনিস্ট্রেটরদের কাজ সম্পন্ন করতে হবে। অনেক সময় এই কাজটা করতে আয়োজকদের কর্মীরা অনেক গড়িমসি করে। সফটওয়্যার লেয়ারে কাজটা না করে রাউটার থেকে করতে হবে। না হলে একজন প্রতিযোগী হলেও এটা ওপেন করে ফেলবে এবং কনটেস্ট শুরু করতে অনেক দেরি হবে। এর আগে, লিডিং ইউনিভার্সিটি এবং নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে নেটওয়ার্ক ঠিকভাবে বন্ধ না করায় কনটেস্ট শুরু হতে অনেক দেরি হয়। এই ব্যাপারে নেটওয়ার্ক অ্যাডমিনকে আগে থেকেই বিশেষ প্রস্তুতি গ্রহণ করে রাখতে হবে। টাফ ছাড়া অন্য কোন সাইটে ঢোকা রোধ করতে হবে এবং প্রতিটা পিসির জন্য আলাদভাবে চেক করতে হবে যে এই রোধকরণ সঠিকভাবে সব পিসির জন্য কাজ করছে কি না। এই ব্যাপারে অনেক সময় নেটওয়ার্ক অ্যাডমিনরা উদাসীন থাকে এই ভেবে যে, কন্টেস্টেন্টরা হয়তো এত কিছু খেয়াল করবে না। তবে যেহেতু তারা সারাদিন পিসি নিয়ে বসে থাকে, তাই তারা অবশ্যই এইসব ব্যাপারে অনেক সতর্ক থাকবে।

২. অনেক সময়েই কনটেস্টের সময়ে ইন্টারনেটের গতি কম থাকে। অনেকগুলো দল একসাথে কনটেস্ট করলে যাতে প্রয়োজনীয় ব্যান্ডউইডথ প্রদান করা থাকে, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত হতে হবে। সবসময় যে পরিমাণ ব্যান্ডউইডথে স্বাভাবিক কাজকর্ম চলে, সেটাই না রেখে দিয়ে বেশি মাত্রায় তা প্রদান করতে হবে।

৩. প্রতিটা পিসির জন্য টাফের “কমপ্যাটিবিলিটি টেস্টার” এর মাধ্যমে চেক করতে হবে সময় এবং ব্রাউজারসহ সব ঠিক আছে কি না। টাফের কম্প্যাটিবিলিটি টেস্টারের লিংক পাওয়া যাবে এখানে: https://toph.co/compatibility এই লিংক অনুযায়ী কোন পিসি থেকে ব্যান্ডউইডথ কম পেলে বা পিসির সময়ে কোন ভুল থাকলে বায়োস থেকে সেটি ঠিক করে নিতে হবে।

৪. নেটওয়ার্ক সঠিকভাবে কনফিগারেশনে সুবিধার জন্য টাফ কিংবা আর্ডেন্ট প্রোগ্রামার্সের কাছ থেকে নেটওয়ার্ক অ্যাডমিনিস্ট্রেটরদের কোন তথ্য প্রয়োজন হলে তা মক কনটেস্টের আগেই জিজ্ঞেস করতে হবে।

৫. নেটওয়ার্ক কনফিগারেশনের কাজ মক কনটেস্টের আগেই সমাপ্ত ও যাচাই করতে হবে। মক কনটেস্টের দিন নেটওয়ার্ক কনফিগারেশনে কোন দুর্বলতা পরিলক্ষিত হলে মকের পরপরই তা সমাধান করতে হবে, সকালের জন্য অপেক্ষা করে থাকলে চলবে না।

প্রতিযোগীদের জন্য চাহিদা:

১. সব কনটেস্টেন্টকে মাস্ক পরিধান করতে হবে এবং মাস্ক ছাড়া কনটেস্ট করতে দেয়া হবে না। সেক্ষেত্রে, এটা তাদের আগে জানিয়ে দেওয়া যেতে পারে এবং কিছু মাস্ক ব্যাকআপ রাখা যেতে পারে।

২. একটি দল ২৫ পৃষ্ঠার উপরে প্রিন্টেড ম্যাটেরিয়াল আনতে পারবে না। প্রিন্ট করা ম্যাটেরিয়ালের ফন্টের সাইজ সর্বনিম্ন ১০ হতে হবে। প্রিন্টেড ম্যাটেরিয়ালগুলো মক কনটেস্টের দিন বিচারকদের কাছে দলের নামসহ জমা দিতে হবে। কনটেস্টের দিন সকালে তাদেরকে সেটা বিচারকদের পক্ষ থেকে যাচাই করার পর ফিরিয়ে দেওয়া হবে। মকের দিন যে সকল দল তাদের ম্যাটেরিয়াল জমা দিতে ব্যর্থ হবে, তাদেরকে মূল কনটেস্টের দিন কোন প্রকার প্রিন্ট করা ম্যাটেরিয়াল সঙ্গে নিতে দেওয়া হবে না। এছাড়া মকের দিন জমা দেওয়া প্রিন্ট করা ম্যাটেরিয়ালের বাইরে কোন প্রিন্ট করা ম্যাটেরিয়াল প্রতিযোগীদের বহন করতে দেওয়া হবে না।

৩. কনটেস্ট চলাকালে প্রতিযোগীরা মোবাইল ফোন বা সাইন্টিফিক ক্যালকুলেটর সাথে রাখতে পারবে না। সেগুলা নিরাপদে জমা নেওয়া এবং কনটেস্ট শেষে নিরাপদে ফিরিয়ে দেওয়ার উপায় রাখতে হবে। এছাড়া কোন পেনড্রাইভ, মেমোরি কার্ড, বা অন্য ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস প্রতিযোগীরা তাদের সাথে রাখতে পারবে না।

৪. কিছু কন্টেস্টেন্ট নামাজের ব্রেক চাইতে পারে। সেক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিতরে তাদের নামাজের একটা নির্দিষ্ট জায়গা রাখতে হবে এবং লক্ষ্য করতে হবে যেন সেখানে তারা নামাজের বিরতির সময়ে নিজেদের মধ্যে আলাপ না করে।

৫. কনটেস্টের ল্যাবরেটরিতে ঢোকার সময়ে প্রত্যেক প্রতিযোগীকে পর্যবেক্ষণ করতে হবে যাতে তারা কোন কোন ধরণের বই, খাতা বা প্রিন্ট করা কোন ডকুমেন্ট সাথে নিতে না পারে। প্রত্যেক প্রতিযোগীকে আয়োজকদের পক্ষ থেকে কলম এবং প্যাড সরবরাহ করতে হবে।

৬. এক রুমে একই দলের বা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই জনকে একই সাথে ওয়াশরুমের বিরতি দেওয়া যাবে না যদি একদম জরুরী না হয়।

৭. কনটেস্ট চলাকালে অন্তত একবার প্রতিযোগীদের খাবার সরবরাহ করতে হবে। এতে কনটেস্টের মান এবং প্রতিযোগীদের প্রতিযোগিতার মানের ব্যাপক উন্নতি হয়।

৮. কনটেস্টের নিয়মাবলী সংক্রান্ত কোন প্রশ্ন প্রতিযোগীরা ভলান্টিয়ারদের করলে অবশ্যই ভলান্টিয়ারদের প্রথমে বিচারকদেরকে প্রশ্নটি জানাবে। এরপর বিচারকদের কাছ থেকে উত্তর নিয়ে প্রতিযোগীকে উত্তরটি জানানো হবে। নিজে থেকে নতুন কোন পরিস্থিতির ব্যাপারে উত্তর দিতে গেলে ভুল হবার সম্ভাবনা থাকে এবং ন্যাশনাল গার্লস প্রোগ্রামিং কনটেস্ট ২০২১ এ এমন একটা ভুল হয়েও গেছে।

৯. সম্ভব হলে একই ল্যাবরেটরিতে একই বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক দলকে বসানো থেকে বিরত থাকতে হবে। এটা সম্ভব না হলে একই বিশ্ববিদ্যালয়ের দলগুলোকে যতটা সম্ভব দুরের আসনে বসতে দিতে হবে।

১০. কোন দলের সকল প্রতিযোগীকে প্রতিযোগিতা শুরুর পূর্বে অবশ্যই ল্যাবরেটরিতে উপস্থিত থাকতে হবে। প্রতিযোগিতা শুরুর পরে কোন প্রতিযোগীকে বাইরে থেকে কনটেস্টের ল্যাবরেটরিতে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

বিচারকদের জন্য চাহিদা:

১. বিচারকদের জন্য আলাদা একটা কক্ষ বরাদ্দ করতে হবে যেখানে ইন্টারনেট সংযোগসহ পিসি থাকবে। অন্তত ১০ জন বিচারকের জন্য এই ব্যবস্থা থাকা জরুরী। বিচারকদের জন্য আলাদা একটি প্রিন্টারের ব্যবস্থা থাকবে হবে।

২. প্রতিযোগীদের মতো বিচারকদের সবাইকেও পুরো সময়ে মাস্ক পরিধান করতে হবে।

৩. বিচারকদের কক্ষে পর্যাপ্ত খাবার ও খাবার পানির ব্যবস্থা থাকতে হবে। খাবারের ব্যাপারে অনেক সময়ে অবহেলা করা হয় এবং এতে বিচারকদের কাজের মানে ক্ষতি হয়ে থাকে। তাই প্রতিযোগীদের মতো বিচারকদেরও খাবারের প্রয়োজনীয় যোগান থাকতে হবে।

৪. কোন প্রতিযোগী দলকে কোন রুমে বসানো হচ্ছে সে ব্যাপারে উপযুক্ত ডকুমেন্ট কনটেস্ট শুরুর আগেই বিচারকদেরকে আয়োজকদের পক্ষ থেকে সরবরাহ করতে হবে।

৫. পুরষ্কার বিতরণীর সময়ে বিচারকদের বক্তব্যের জন্য দুইটা সেগমেন্ট রাখা দরকার। একটাতে প্রবলেমসেট অ্যানালাইসিস থাকবে এবং অন্যটায় বিচার পদ্ধতি ও ধন্যবাদ প্রস্তাবসহ বাকি কথাগুলো থাকবে।

৬. যদি বিচারকদেরকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয় ( এটা আয়োজকদের একান্ত ইচ্ছা ), তা হলে উপস্থিত বিচারকদের স্টেজে ডেকে ক্রেস্ট দেওয়া উচিৎ। সাধারণত উপস্থিত অনেককেই ক্রেস্ট দেওয়া হয়, কিন্তু বিচারকদের ক্রেস্ট সময় স্বল্পতার কথা বলে পরে দেওয়া হয়, এতে কিছু বিচারক মণঃক্ষুণ্ণ হয়ে থাকে।

৭. আর্ডেন্ট প্রোগ্রামার্সের পক্ষ থেকে যে নিয়মাবলী প্রতিযোগীদের দেওয়া হবে তা বিস্তারিতভাবে পড়ে দেখার জন্য প্রতিযোগীদের এবং আয়োজকদের উৎসাহিত করতে হবে। কোন প্রতিযোগী যদি নিয়ম ভেঙ্গে ফেলে তবে বিচারকদের এখতিয়ার অনুযায়ী তাকে বহিষ্কার করা হবে। এ ব্যাপারে প্রতিযোগী বা অন্য কোন কর্তৃপক্ষ থেকে বিচারকদের কোনরূপ চাপ প্রয়োগ করা যাবে না।

৯. বিচারকদের ঘরের পিসিগুলোতে সবগুলো সাইটে ঢুকতে পারার ব্যবস্থা রাখতে হবে।

১০. প্রতিযোগিতার সামগ্রিক নিরপেক্ষতা বজায় রাখার জন্য বিচারকরা সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করবে এবং প্রতিযোগিতার ব্যাপারে বিচারকদের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে।

১১. যদি এমন কোন পরিস্থিতির উৎপত্তি হয় যা বিচারকদের প্রদান করা নীতিমালার মধ্যে পড়ে না , তা হলে বিচারকরা তাদের অভিজ্ঞতা ও সমঝোতার মাধ্যমে উদ্ভুত পরিস্থিতির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়ার পূর্ণ ক্ষমতা রাখবেন।

প্রবলেমসেটের জন্য চাহিদা:

১. প্রতিযোগিতা শুরু হবার অন্তত একদিন আগে প্রবলেমসেট প্রিন্ট করে খামে ভরে ফেলতে হবে এবং প্রবলেমসেটের গোপনীয়তা রক্ষায় সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

২. প্রতিযোগী প্রতিটি দলের জন্য একটি করে প্রবলেমসেট প্রিন্ট করতে হবে। প্রতিটা দলের প্রবলেমসেট তাদের নামের স্টিকারসহ একটি খামে ভরে রাখতে হবে।

৩. সবগুলো প্রতিযোগী দলের বাইরে ১০টি অতিরিক্ত প্রবলেমসেট খামে ভরে রেখে দিতে হবে। বিশেষ প্রয়োজনে এই প্রবলেমসেট থেকে বিচারকদের অনুমতিস্বাপেক্ষে প্রতিযোগীদের অতিরিক্ত সেট প্রদান করা যেতে পারে। প্রতিযোগিতা শুরুর ১ ঘণ্টা পর এই অতিরিক্ত প্রবলেমসেটগুলো উপস্থিত কোচ বা অতিথিদের দেওয়া যেতে পারে। তবে এখানে লক্ষ্য রাখা জরুরী যে, অতিথি বা কোচরা যেন কনটেস্ট চলাকালে কোনভাবেই প্রতিযোগীদের সাথে যোগাযোগ না করতে পারে।

৪. প্রবলেমসেট প্রিন্ট করার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্বাহী দায়িত্বে থাকা বা সিনিয়র কোন শিক্ষকের কাছে প্রবলেমসেটগুলো গোপনীয়তার সাথে গচ্ছিত রাখতে হবে।

৫. প্রতিযোগীতার দিন বিচারকদের উপস্থিতিতে প্রবলেমসেট এই গোপন জায়গা থেকে প্রতিযোগীদের রুমে বিচারকদের মাধ্যমে প্রদান করা হবে।

৬. প্রবলেমসেটের খাম হাতে পাওয়ার পর থেকে কনটেস্ট শুরু হবার আগ পর্যন্ত কোন প্রতিযোগী খাম থেকে প্রবলেম খুলে বের করতে পারবে না। যদি কোন প্রতিযোগী তা করে থাকে, তবে তার দল কনটেস্টের জন্য নিষিদ্ধ বলে বিবেচিত হবে। কনটেস্ট প্ল্যাটফর্ম টাফে কনটেস্ট শুরু হবার পরেই কেবল প্রতিযোগিরা তাদের প্রবলেমসেটের খাম খুলতে পারবে। প্রবলেমসেটের খাম খোলার পর ভলান্টিয়াররা প্রতিযোগীদের সব পৃষ্ঠায় ঠিকমতো প্রিন্ট আছে কি না, তা চেক করে দেখতে মনে করিয়ে দেবে। যদি কোনো পৃষ্ঠায় ত্রুটি থাকে, তা হলে ভলান্টিয়াররা তৎক্ষণাৎ সেটি বিচারকদের জানাবে এবং বিচারকরা অতিরিক্ত প্রবলেমসেট থেকে প্রতিযোগীদের আরেকটি নতুন প্রবলেমটসেট প্রদান করবে।

৭. বিচারকদের সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা স্বত্ত্বেও যদি কোন প্রবলেমের বর্ণনাতে কোন ত্রুটি থাকে তা হলে বিচারকরা টাফের মাধ্যমে তা দ্রুত ঠিক করে ফেলবে এবং অটোমেটেড উত্তরের পাশাপাশি প্রতিযোগীদের ল্যাবরেটরিতে গিয়ে তা বলে আসবে।

সার্বিক পরামর্শ:

১. উপরোল্লিখিত নির্দেশনাবলী সকল ভলান্টিয়ার এবং কনটেস্টের সাথে সরাসরিভাবে যুক্ত কর্তৃপক্ষের পড়ে রাখা জরুরী। নির্দেশনাবলীর ব্যাপারে কোন জিজ্ঞাসা থাকলে তা বিচারকদেরকে সরাসরি জানানোর জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানানো যাচ্ছে।

২. কোন বিশেষ পরিস্তিতিতে উপরোল্লিখিত নিয়মাবলীর কোনটি পালন করা সম্ভব না হলে সে ব্যাপারে বিচারকদের অতিসত্ত্বর জানানোর জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানানো যাচ্ছে।

৩. উপরোল্লিখিতি নিয়মাবলীর কোন সংশোধন বা সংযোজনের পরামর্শ অত্যন্ত আকাঙ্খিত। এ ব্যাপারে কোন পরামর্শ থাকলে তা বিচারকদের জানানোর জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানানো যাচ্ছে।

৪. উপরোল্লিখিত নিয়মাবলীর বিস্তারিত ব্যাখ্যার প্রয়োজনে বিচারকদের সাথে ভলান্টিয়ারদের আলোচনার আয়োজন করা যেতে পারে। প্রয়োজনে অনলাইনেও এই আলোচনাগুলো সম্পাদনা করা যেতে পারে।